logo
the biggest site of
General Knowledge
for knowledge seekers

Emergence of Bengali Nation
বাঙালি জাতির উদ্ভব

» সমগ্র বাঙালি জনগোষ্ঠীকে দু'ভাগে ভাগ করা যায় প্রাক আর্য বা অনার্য নরগোষ্ঠী এবং আর্য নরগোষ্ঠী। » আর্যপূর্ব জনগোষ্ঠী মূলত ৪ শাখায় বিভক্ত। » নেগ্রিটো, অস্ট্রিক, দ্রাবিড় ও ভোটচীন। » অস্ট্রো-এশিয়াটিক বা অস্ট্রিক গোষ্ঠী থেকে বাঙালি জাতির প্রধান অংশ গড়ে উঠেছে বলে ধারণা করা হয়। এদের ‘নিষাদ জাতি’ নামে অভিহিত করা হয়। » প্রায় পাঁচ-ছয় হাজার বছর পূর্বে ইন্দোচীন থেকে বাংলায় প্রবেশ করে অস্ট্রিক জাতি নেগ্রিটোদের পরাজিত করে। » অস্ট্রিক জাতির সময়কালে বা কিছু পরে দ্রাবিড় জাতি খাইবার গিরিপথ দিয়ে আসে এবং সভ্যতার উন্নততর বলে তারা অস্ট্রিক জাতির উপর প্রভাব বিস্তার করে। » অস্ট্রিক ও দ্রাবিড় জাতির সংমিশ্রণে সৃষ্টি হয়েছে আর্যপূর্ব বাঙালী জাতি।
» খ্রিস্টপূর্ব ১৫০০ অব্দে আফগানিস্তানের খাইবার গিরিপথ দিয়ে ককেশীয় অঞ্চলের শ্বেতকায় আর্যাগোষ্ঠী ভারতবর্ষে প্রবেশ করে। » উপমহাদেশে আগমনের অন্তত ১৪০০ বছর পরে খ্রিস্টপূর্ব প্রথম শতকে বঙ্গ ভূখণ্ডে আর্যদের আগমন ঘটে। » এদেশে আর্যদের আগমনের পূর্বে এ অঞ্চলে স্থানীয় অন্তজ সম্প্রদায়ের বসবাস ছিল। নৃতাত্ত্বিক পর্যবেক্ষণের দিক থেকে এরা অস্ট্রিক নামে পরিচিত। » আর্যদের স্থানীয় অন্তজ সম্প্রদায়ের তথা অস্ট্রিক জাতির হতে সংস্কৃতি ও সভ্যতায় ছিল উন্নত। » তাই স্থানীয় অধিবাসীগণ আর্যদের ভাষা, আচরণ, রীতিনীতির দ্বারা প্রভাবিত হয়েছি। এভাবে আর্য ও অনার্য আদিম অধিবাসীদের সংমিশ্রণে এক নতুন মিশ্র জাতির উদ্ভব ঘটে।
  প্রশ্ন   উত্তর
  » সমগ্র বাঙালি জনগোষ্ঠীকে কতভাগে ভাগ করা যায় ও কী কী? * : দুই ভাগে। প্রাক-আর্য বা অনার্য নরগোষ্ঠী ও আর্য নরগোষ্ঠী
  » আর্যপূর্ব জনগোষ্ঠী মূলত কত ভাগে বিভক্ত ছিল ও কী কী? *** : চার ভাগে। নেগ্রিটো, অস্ট্রিক, দ্রাবিড় ও ভোটচীনীয়
  » কোন গোষ্ঠী থেকে বাঙালি জাতির প্রধান অংশ গড়ে উঠেছে? *** : অস্ট্রিক গোষ্ঠী থেকে
  » বৈদিক যুগ কাকে বলে? * : আর্য় যুগকে
  » আর্যগন কবে প্রথম উপমহাদেশে আগমন করে? *** : সম্ভবত খ্রিস্টপূর্ব ১৪০০ বা ১৫০০ অব্দে
  » আর্য কারা? * : সংস্কৃত অর্থে আর্য শব্দের অর্থ সৎ বংশজাত ব্যক্তি
  » আর্যদের ধর্ম ধর্মগ্রন্থের নাম কী? *** : বেদ
  » আর্য সংস্কৃতি সমধিক বিকাশ লাভ করে কোন আমলে? *** : পাল শাসনামলে
  » আর্য জাতি ভারতে প্রবেশ করার পর প্রথমে কোন অঞ্চলে বসতি স্থাপন করে? *** : সিন্ধু-বিধৌত অঞ্চলে
  » প্রাচীন কর্ণসুবর্ণ বলতে কোন অঞ্চলকে বোঝায়? *** : আধুনিক পঞ্চিমবঙ্গের মুরির্শদাবাদ জেলাকে
  » বাংলাদেশের বাইরে বাংলাভাষী লোকের বসবাস কোথায়? : ভারতের পশ্চিমবঙ্গের সবখানে, বিহার, উড়িষ্যা, ত্রিপুরা ও আসাম রাজ্যের কিছু অংশ এবং মায়ানমারের আরাকান রাজ্য
  » বঙ্গ নামে দেশের উল্লেখ কত বছর আগে ও কোথায় পাওয়া যায়? *** : খ্রীষ্টপূর্ব তিনহাজার বছর আগে ঋগ্বেদের ঐতরেয় আরণ্যক নামক গ্রন্থে
  বাংলা ভাষার উৎপত্তি কোন শতাব্দীতে? ***   সপ্তম শতাব্দী
  » প্রচীন বংলার জনপদগুলো কিকি? *** : গৌড়, পুন্ড্র, বরেন্দ্রীয়, রাঢ়, তাম্রলিপি, সমতট, বঙ্গ, বাঙ্গাল, হরিকেল
  » বাংলা নামের উৎপত্তি সম্পর্কে কোন গ্রন্থে উল্লেখ আছে? : আইন-ই-আকবরী
  » বঙ্গ এবং বঙ্গাল শব্দের উল্লেখ পাওয়া যায় কোন গ্রন্থে? ***   শামস-ই-সিরাজ তবকিয়া রচিত তারিখ-ই-ফিরোজ শাহিী গ্রন্থে
  » বাঙালি জাতি বাংলার বাইরে কী নামে পরিচিত ছিল? : গৌড়িয়া
  » জনদপদগুলোর মধ্যে সবচেয়ে প্রাচীন জনপদ ছিল কোনটি? *** : পুণ্ড্র জনপদ
  » কোন অঞ্চল নিয়ে রাঢ় জনপদ গঠিত? : মধ্য-পশ্চিমবঙ্গ (ভাগিরথী নদীর পশ্চিম তীর)
  » কোন অঞ্চল নিয়ে সুক্ষ জনপদ গঠিত?   দক্ষিণ-পশ্চিমবঙ্গ
  » কোন অঞ্চল নিয়ে পুন্ড্র জনপদ গঠিত? *** : বগুড়া (মহাস্থানগড়), রাজশাহী, রংপুর ও দিনাজপুর অঞ্চল
  » পুণ্ড্র জনপদের রাজধানী কোথায় ছিল? *** : বগুড়ার মহাস্থানগড় সে সময়ে পুণ্ড্রনগর বা পুণ্ড্রবর্ধন নামে পরিচিত ছিল। এখানে ছিল এ জনপদের রাজধানী
  » কোন অঞ্চল নিয়ে বঙ্গ জনপদ গঠিত? *** : পূর্ব বঙ্গ (ময়মনসিংহ, ঢাকা ও ফরিদপুর)
  » কোন অঞ্চল নিয়ে সমতট-হরিকেল জনপদ গঠিত? *** : পূর্ব বঙ্গের দক্ষিণাঞ্চল (কুমিল্লা ও নোয়াখালী জেলা)
  » কোন অঞ্চল নিয়ে বরেন্দ্র জনপদ গঠিত? : উত্তর বঙ্গ (গঙ্গা ও করতোয়া নদীর মধ্যবর্তী উচ্চভূমি অঞ্চল)
  » কোন অঞ্চল নিয়ে বরেন্দ্র মন্ডল গঠিত? : বগুড়া, রাজশাহী ও দিনাজপুরের কিছু অংশ নিয়ে গঠিত
  কোন অঞ্চল নিয়ে হরিকেল জনপদ গঠিত? : বাকেরগঞ্জ (বরিশাল) অঞ্চলের সংলগ্ন এলাকা
  » সপ্তম শতাব্দিতে বাংলার প্রথম স্বাধীন রাজা শশাঙ্ক জনপদগুলোকে কি নামে একত্র করেন? : জনপদগুলোকে গৌড় নামে একত্র করেন
  » শশাঙ্ক স্বাধীন রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেন কখন? : ৬০৬ সালের আগেই
  » শশাঙ্কের রাজধানী কোথায় ছিল? *** : মুরশিদাবাদ জেলার কর্ণসুবর্ণ
  » বাংলার প্রথম স্বাধীন রাজা *** : শশাঙ্ক
  » শশাঙ্কের পর বঙ্গ দেশ কোন তিন জনপদে বিভক্ত হয়? *** : পুন্ড্র, গৌড় ও বঙ্গ
  » বাংলাদেশে তুরকি সম্রাজ্যের সূত্রপাত ঘটান কে? *** : ১২০৪ সালে ইখতিয়ার উদ্দিন মুহাম্মদ বিন বখতিয়ার খিলজি বঙ্গ বিজয়ের মাধ্যমে
  » ইখতিয়ার উদ্দিন কোন বিশ্ববিদ্যালয় ধ্বংশ করেছিলেন? : নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়। ২৫০০ শিক্ষক এবং ১০,০০০ ছাত্রকেও হত্যা করেন এবং লাইব্রারেতে আগুন দেন যা পুড়তে ৬ মাস সময় লেগেছিল।
  » কোন সম্রাট সমগ্র বাংলাকে একত্র করেন? ** : ১৪৭৬ সালে সম্রাট আকবর মোগল সম্রাজ্যভূক্তির মাধ্যমে
  » সম্রাট আকবরের আমলে সমগ্র বঙ্গদেশ কি নামে পরিচিত ছিল? ** : সুবহ-ই বাঙ্গালহ নামে পরিচিতি লাভ করে
  » ফারসি শব্দ বাঙ্গালহ থেকে কনো শব্দ এসেছে? : পর্তুগিজ Bengala এবং ইংরেজি Bengal শব্দ এসেছে
  » লক্ষণসেনের আমলে বঙ্গ ছিল কোন অঞ্চল নিয়ে ? : ফরিদপুর, ঢাকা ও ময়মনসিংহ নিয়ে গঠিত অঞ্চল
  » মধ্যযুগে প্রথম বাঙ্গাল নাম উচ্চারণ করেন কে? : ইবনে বতুতা
  » সর্ব প্রথম দেশ বাচক বংলা শব্দ ব্যবহৃত হয় কোন গ্রন্থে? : মোগল সম্রাট আকবরের সভাসদ বিখ্যাত ঐতিহাসিক আবুল ফজলের আইন-ই-আকবরী গ্রন্থে
  » প্রাচীন কোন কোন গ্রন্থে বাংলাদেশের নাম উল্লেখ পাওয়া যায়? : ঋগ্বেদের ঐতরেয় আরণ্যকের শ্লোকে (২-১-১), মহাভারতে, পতঞ্জলির ভাষ্যে, ওভেদী, টলেমির লেখায়, কালিদাসের রঘুবংশে এবং আবুল ফজলের আইন-ই-আকবরী গন্থে।
  » সমগ্র বাঙালি জনগোষ্ঠীকে কোন দু ভাগে বিভক্ত? : প্রাক-আর্য বা অনার্য এবং আর্য জনগোষ্ঠী
  » প্রাক-আর্য জনগোষ্ঠী কোন চার ভাগে বিভক্ত? : নেগ্রিটো, অস্ট্রিক, দ্রাবিড় ও ভোটচীনীয়
  » বাঙাল জাতির প্রধান অংশ গড়ে উঠেছে কাদের সংমিশ্রণে? : অস্ট্রো-এশিয়াটিক বা অস্ট্রিক গোষ্ঠী হতে যাকে অনেকে নিষাদ জাতি বলে
  » প্রায় পাঁচ-ছয় হাজার বছর পূর্বে ইন্দোচীন থেকে আসাম হয়ে বাংলায় প্রবেশ করে কারা? : অস্ট্রিক জাতি
  » বাংলায় প্রবেশ করে অস্ট্রিক জাতি কাদের উৎখাত করে? : নেগ্রিটোদের উৎখাত করে
  » কোল, ভীল, সাঁওতাল, মুন্ডা উপজাতির পূরবপুরুষ কারা? : অস্ট্রিক জাতি
  » প্রায় পাঁচ হাজার বছর পূর্বে দ্রাবিড় জাতি কাদের সময়ে বংলায় আসে? : অস্ট্রিক জাতির সমকালে বা তার কিছু পরে
  » সভ্যতায় উন্নততর বলে দ্রাবিড় কোন জাতিকে গ্রাস করে? : অস্ট্রিক জাতিকে গ্রাস করে
  » অস্ট্রিক ও দ্রাবিড় জাতির সংমিশ্রণে কোন জিতির সৃস্টি? *** : আর্যপূরব বাঙালি জনগোষ্ঠী
  » আর্যপূর্ব বাঙালি জনগোষ্ঠী ও আর্য জাতির সংমিশ্রণে কোন জাতি সৃষ্টি? : বাঙালী জাতি
  » বাংলাদেশে কোন সময়ে আরবীকরণ পালা চলে? : মৌর্য বিজয় হতে গুপ্ত বংশের অধিকার পর্যন্ত (খ্রিস্টপূর্বে ৩০০ অব্দ হতে ৫০০ খ্রিস্টীয় অব্দ পর্যন্ত)
  » সেমীয় গোত্রের আরবিয়েরা কোন সময়ে বাঙালি জাতির সঙ্গে সংমিশ্রিত হয়? : খ্রিস্টীয় অষ্টম শতাব্দীতে
  » সেমীয় গোত্রের আরবিয়েরা বঙ্গদেশে আসে : ইসলাম প্রচার ও ব্যবসা বাণিজ্যের জন্য
  » বাঙালি জাতির কোন কোন জাতির সংমিশ্রণ? : গৌড়, মালব, চৌড়, শক, হূন, কুলিক, করণাক, লাট, দ্রাবিড়, মুন্ডা, কুষাণ, ইউচি, আরব, ইরানী, হাবশি, গ্রীক, তুরর্কি, আফগান, মোগল, পরতুগীজ, ওলন্দাজ, ফরাশি ও ইংরেজ
  » আর্য সভ্যতার সময় কোন ধর্ম এ দেশে প্রচলিত ধর্ম? : বৈদিক ধর্ম
  » সম্রাট অশোকের সময় কোন ধর্মে প্রচলিত ধর্ম? ** : বৌদ্ধ ধর্ম ও জৈন্য ধরম
  » গ্রপ্ত যুগে কোন মতবাদের প্রসার লাভ করে? : ব্রাহ্ম ধর্ম ও তান্ত্রিক মতবাদ ও শৈব্য ধরম
  » অষ্টম শতকে কোন ধর্মের প্রসার ঘটে? ** : বৈষ্ণব ধর্ম
  » পাল রাজাদের আমলে পুনরায় কোন ধর্ম ব্যপকতা লাভ করে? ** : বৌদ্ধ ধর্ম
  » পাল যুগে বৌদ্ধ ধরম জনপ্রিয় হয় কোন ধর্ম রূপে? : সহজিয়া ধর্ম রূপে
  » সহজিয়াদের ধর্মমতের আচার্য কি নামে পরিচিত? : সিদ্ধাচার্য নামে পরিচিত
  » হিন্দু নামে জাতির পরিচয় হয় কোন সময়ে? : মুসলিম শাসনামলে
  » মুসলমানদের আগমন বা মোগল শাসনামলে কোন ধর্মে প্রচার শুরু হয়? ** : ইসলাম ধর্মের প্রচার শুরু
» সমালোচনাঃ বিদেশীদের দ্বারা লিখিত ইতিহাস আমরা পড়ি। » তারা যা লিখেছে আমরা তা বিনা বাক্যে বিশ্বাসের সাথে মেনে নিয়েছি এবং এখনো মেনে চলেছি। » এখন সময় এসেছে সত্য জানার এবং নিজেদের গৌরব উজ্জ্বল ইতিহাস নিয়ে গর্ব করার। » আমি সংক্ষেপে কিছু প্রশ্ন আপনাদের মনে সৃষ্টি করছি আপনারাই পারবেন এর সত্য উদ্ভাবন করতে। » পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জাতি আর্য আর তারা কোন বাইরে থেকে আসা আগ্রাসী শক্তি নয়। » পৃথিবীতে সৃষ্টির সুরু থেকেই আমরা (আর্যরা) এখানে ছিলাম এবং এখনো আছি। » আমরাই দাবি করতে পারি পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সভ্য জাতি হিসাবে। » কিছু অসব্য বর্বর জাতি আজ আমাদের সেই শ্রেষ্ঠ সংস্কৃতি নষ্ট করে চলেছে। » এখনি সচেতন হন এবং নিজেদের গৌরবময় ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে সচেষ্ট হোন।
» প্রমাণঃ আপনারা উপরের থেকেই যানতে পারলেন আর্যরা নাকি সর্বপ্রথম ১৪০০ খ্রিষ্টপূর্বে এউপমহাদেশে এসেছিল। » এটা বলা হয়েছে পরিকল্পিত ভাবে তাদের স্বার্থ উদ্ধারের জন্য কারণ এটা প্রমাণ করতে পরলে অন্য যারা বর্বর জাতি এখানে এস অসভ্য সংস্কৃতি সৃষ্টি করতে চাইছে তাদের বৈধতা পেতে সুবিধা হয়। » ভেবে দেখুন আর্যদের ধর্ম বেদে আজ থেকে ৩০০০ বছর আগে দেশের নাম হিসাবে বঙ্গ শব্দটির উল্লেখ আছে। » তাহলে প্রশ্ন মাত্র ১৪০০ বছর আগে এসে তারা ৩০০০ বছর আগের বইতে এখানের কথা লিখল কিভাবে? » কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধের স্থান এবং বিভিন্ন নিদর্শন এখনো এ উপমহাদেশে আছে যার সর্বনিম্ন বয়স ৫০০০ বছর। » কৃষ্ণের দেওয়া সেই পবিত্র গীতাতে ৫০০০ বছর আগে শ্রীকৃষ্ণ অর্জুণকে বেদের জ্ঞান দিলেন কী করে? » যদি আর্যরা মাত্র ১৪০০ বছর আগে তাদের বেদ নিয়ে এ উপমহাদেশে আসে? » আর বাঙ্গালিদের বলা হয় কাল, কোল, ভিল বিভিন্ন উপজাতির মিশ্রণ। » সেটা হয়েছে কিছু আরব ও বহিরাগতদের কারণে। » কিন্তু আমাদের পূর্বপুরুষরা ছিল উৎকৃষ্ট আর্য জাতি। » তাদের চেহারা ছিল উজ্জ্বল গৌর বর্ণের (পরিষ্কার, ফর্সা) আর তাই আমলা অন্য অঞ্চলের কাছে পরিচিত ছিলাম গৌড়িয়া নামে। » নিজের গৌরবময় ইতিহাস জানুন এবং নিজেদের ইতিহাস ঐতিহ্য নিয়ে গর্বের সাথে পালন করুন।
Copyright © Sabyasachi Bairagi